টিকা:

ডিক্রি:

ডিক্রির সংজ্ঞা: ১৯০৮ সালের দেওয়ানী কার্যবিধির ২(২) ধারায় ডিক্রির সংজ্ঞা প্রদান করা হয়েছে। উক্ত ধারা অনুসারে, ডিক্রি বলিতে আদালত কর্তৃক আনুষ্ঠানিকভাবে প্রচারিত এমন কোন বক্তব্যকে বুঝায়, যাহা কোন মােকদ্দমায় তর্কিত সমস্ত বা কোন বিষয় সম্পর্কে পক্ষসমূহের অধিকার চূড়ান্তভাবে নির্ধারণ করে এবং এই ডিক্রি” প্রাথমিক বা চুড়ান্তও হতে পারে। আরজি বাতিল এবং এই কার্যবিধির ১৪৪ ধারায় বর্ণিত কোন প্রশ্ন বিচারে নিষ্পত্তি হলে তাহা ডিক্রি হিসাবে গণ্য হবে, তবে নিম্নলিখিত বিষয় ডিক্রির অন্তর্ভূক্ত হবে না:
ক) যে সকল আদেশের বিরুদ্ধে আপীল করা যায়; অথবা
খ) আদালতের কোন নির্দেশ পালনে ব্যর্থতার কারণে কোন মােকদ্দমা খারিজের আদেশ।

ডিক্রির শ্রেণিবিভাগঃ
ডিক্রি সাধারণত দুই প্রকারঃ
১। প্রাথমিক ডিক্রি; এবং
২। চূড়ান্ত ডিক্রি

প্রাথমিক ডিক্রি (Preliminary Decree): ১৯০৮ সালের দেওয়ানী কার্যবিধির ২(২) ধারার ব্যাখ্যায় বলা হয়েছে ডিক্রি তখনই প্রাথমিক হয়, যখন মােকদ্দমার চূড়ান্ত নিষ্পত্তির জন্য আরও ব্যবস্থা গ্রহণের প্রয়ােজন থাকে। এবং

চুড়ান্ত ডিক্রি (Final Decree): মােকদ্দমার বিষয়বস্তু যখন চূড়ান্তভাবে নিষ্পত্তি হয়, তখনই ডিক্রি চূড়ান্ত হয়ে
থাকে। ডিক্রি আংশিকভাবে প্রাথমিক এবং আংশিকভাবে চূড়ান্ত হতে পারে।

ইহা ছাড়াও আরও তিন প্রকারের ডিক্রি পরিলক্ষিত হয়; যেমনঃ
১। দো-তরফা সূত্রে ডিক্রি (Contested Decree): উভয় পক্ষের শুনানির পর আদালত যে ডিক্রি প্রদান করেন তাহাকেই দো-তরফা সূত্রে ডিক্রি বলে। ইহা দেওয়ানী কার্যবিধির ২(২) ধারায় সংজ্ঞায়িত ডিক্রিই এই প্রকার ভিক্রি।
২। এক-তরফা ডিক্রি (Exparte Decree): মােকদ্দমার শুনানির দিন যদি বাদী উপস্থিত থাকে এবং বিবাদী অনুপস্থিত থাকে, সে ক্ষেত্রে যদি প্রমাণ হয় যে, সমন যথারীতি জারি করা হয়েছে, তবে আদালত বিবাদীর বিরুদ্ধে একতরফা ডিক্রি প্রদান করিবেন। ইহা দেওয়ানী কার্যবিধির ৯ আদেশের ৬ বিধিতে বর্ণিত আছে।
৩। সােলেনামা ডিক্রি (Compromise Decree): যখন মােকদ্দমার উভয়পক্ষ বিতর্কিত বিষয়ে আপােষের ভিত্তিতে একমত হইয়া আদালত হইতে যে ডিক্রি হাসিল করে- তখন সেই ডিক্রিকে সােলেনামা ডিক্রি বলে। ইহা দেওয়ানী কার্যবিধির ২৩ আদেশের ৩ বিধিতে বর্ণিত আছে।

বিগত সালে ডিক্রি বিষয়ে যেভাবে প্রশ্ন এসেছে:-
দেওয়ানী কার্যবিধি, ১৯০৮

‘রায়’ এবং ‘ডিক্রী’ এর মধ্যে পার্থক্য করুন। [পরীক্ষাঃ ২২ এপ্রিল, ২০১১]

ব্যাখ্যা করুনঃ ডিক্রী ও আদেশ [পরীক্ষাঃ ১৯শে জুন, ২০০৯]

সংজ্ঞা দিনঃ আদেশ এবং ডিক্রী;[ ২৭শে আগষ্ট, ২০০৪]

ডিক্রির সংজ্ঞা লিখুন। [দেওয়ানী কার্যবিধি, ২০০৩]

আপডেট